গৌরনদীতে পৃথক ২টি হামলা ও সংঘর্ষে আহত ১৬

0
309

গৌরনদী প্রতিনিধি।। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবার রাতে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার বার্থী ও হোসনাবাদ এলাকায় পৃথক ২টি গ্রæপের মধ্যে পৃথক ২টি হামলা-পাল্টাহামলা ও সংঘর্ষে ছাত্রলীগের একনেতা ও স্কুল-কলেজের ৬ ছাত্রসহ ১৬ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত ১ জনকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ও ১০ জনকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, উপজেলার বদরপুর গ্রামের দশম শ্রেনীর ছাত্র সাগর সরদার, রুবেল মৃধা, সাব্বির সেরনিয়াবাত, তাদের সহপাঠীকে হোসনাবাদ ল ঘাটে এগিয়ে (আগাইয়া) দিতে বুধবার বিকালে পিঙ্গলাকাঠি ল ঘাট থেকে নিউসান লে উঠে। চলন্ত লে বসে হোসনাবাদ গ্রামের কয়েক জন যুবক ধুমপান করে। এ সময় বদরপুর গ্রামের ওই ছাত্ররা হাসাহাসি করলে ধুমপায়ীদের আত্মমর্যাদায় বাজে। ওইদিন সন্ধ্যায় হোসনাবাদ ল ঘাটে ঢাকাগামী নিউসান ল পৌঁছলে হাসাহাসির ঘটনাকে কেন্দ্র করে ধুমপায়ী সাগর হাওলাদার, সুজন বেপারীর নেতৃত্বে ১৫-২০ ওই লে হামলা চালিয়ে বদরপুর গ্রামের স্কুলছাত্র সাগর সরদার, রুবেল মৃধা, সাব্বির সেরনিয়াবাতকে মারপিট করে। এরপর ১টি মোবাইল ফোনসহ ওই ৩ ছাত্রকে আটকে রাখে তারা। এ খবর পেয়ে বদরপুর গ্রামের ছাত্রলীগের নেতা রানা সেরনিয়াবাতের নেতৃত্বে এলাকার ছাত্রলীগের ১০-১২ নেতাকর্মী হোসনাবাদ ল ঘাটে গিয়ে হামলা চালিয়ে সাগর হাওলাদারকে মারধর করে আহত অবস্থায় ওই ৩ ছাত্রকে উদ্ধার করে রাত ৯টার দিকে হোসনাবাদ টেম্পোস্ট্যান্ডে এসে ২টি ইজি-বাইকে চড়ে। এ সময় হোসনাবাদ গ্রামের সাগর হাওলাদার, সুজন বেপারী, বাচ্চু হাওলাদার, কাওছার শিকদাররের নেতৃত্বে ৩৫-৪০ জনে লোহার রড় ও হাতুড়ি নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়ে ছাত্রলীগ নেতা রানা সেরনিয়াবাত, ছাত্রলীগ কর্মী আমিনুল সেরনিয়াবাত, রায়হান সেরনিয়াবাত, ইব্রাহিম মোল্লা, খবির বেপারী, নাজমুল মৃধাসহ ১০ জনকে হাতুড়ি পেটা করে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় ৭ জনকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
এদিকে, উপজেলার বার্থী গ্রামে সোহেল বয়াতীর স্ত্রী লামিয়া বেগমের একটি হাঁস মঙ্গলবার থেকে খুজে না পাওয়ার কারণে টিটু বয়াতীর স্ত্রী রুমা বেগমকে দায়ী করেন। হাঁস হারানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে বুধবার রাত ৮টার দিকে লামিয়া বেগম ও রুমা বেগমের মধ্যে বাকবিতন্ডা বাঁধে। এক পর্যায়ে উভয় গক্ষের লোকজন একে অপরের ওপর হামলা চালালে উভয় গ্রæপের সমর্থকরা সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। হামলা ও সংঘর্ষে লিটন বয়াতাী ওরফে কালু বয়াতী, টিটু বয়াতী, সোহেল বয়াতী, নুরজাহান বেগমসহ উভয় পক্ষের ৫জন আহত হয়। গুরুতর আহত লিটন বয়াতীকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ও ৩ জনকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে