ঢাকা বিভাগে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান ডাসারের সরকারি শেখ হাসিনা একাডেমী এন্ড উইমেন্স কলেজ

0
151

মাদারীপুরে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৯ ও সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার দেয়া হয়েছে। এতে ঢাকা বিভাগে শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসাবে পুরস্কার পেয়েছেন মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার ডাসারের সরকারি শেখ হাসিনা একাডেমী এন্ড উইমেন্স কলেজ।
সোমবার দুপুরে জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে জেলা শিক্ষা অফিস কর্তৃক আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিজয়ী প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ জাকিয়া সুলতানার হাতে পুরস্কার তুলে দেন মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম।
এ বছর মাধ্যমিক পর্যায় শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে জেলা ও ঢাকা বিভাগীয় পর্যায়ে পুরস্কার পেয়েছেন আলহাজ¦ আমিন উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সৈয়দ আকমল হোসেন। এছাড়া জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ও সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ প্রতিযোগিতায় জেলা পর্যায়ে তিনটি ক্যাটেগরীতে ১২ জন শিক্ষার্থীকে ১৫০০ টাকা শিক্ষাবৃত্তি ও জেলার ৫৬ জন শিক্ষার্থীকে সম্মাননা ক্রেস্ট ও সনদপত্র দেয়া হয়।
জেলা শিক্ষা কার্যালয়ের কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিরতণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম। এছাড়াও বিশেষ অতিথি ছিলেন সরকারি শেখ হাসিনা একাডেমী এন্ড উইমেন্স কলেজ জাকিয়া সুলতানা, ডনোভান সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রতন কুমার খান, আলহাজ¦ আমিনউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সৈয়দ আকমল হোসেন ও জেলা সংস্কৃত বিষয়ক কর্মকর্তা মো. সাইফুল হাসান, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মো: শহীদুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে জেলার বিভিন্ন স্কুল কলেজের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।
ঢাকা বিভাগে এবার নিয়ে তিনবার ও জেলায় পাঁচবার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করা প্রতিষ্ঠান সরকারি শেখ হাসিনা একাডেমী এন্ড উইমেন্স কলেজের অধ্যক্ষ জাকিয়া সুলতানা বলেন, ‘কলেজটি প্রতিষ্ঠাতা সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন। তিনি একজন শিক্ষানুরাগী। তার স্বার্থহীন প্রচেষ্টায় আজ আমাদের সাফল্য। আমরা চেয়েছি শিক্ষার্থীদের মান উন্নয়ন করতে। শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার পাশাপাশি নানা দিকে যোগ্য হিসাবে গড়ে তোলার লক্ষে আমরা প্রতিনিয়ন নতুনত্ব দিকে এগিয়ে যাচ্ছি।’
শিক্ষার্থী ও প্রতিষ্ঠান প্রধানদের উদ্দেশ্যে করে জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা সবাই পরিবর্তন চাই। প্রতিটি মানুষের পরিবর্তন চাই। ব্যক্তির অন্বেষণ করা উচিত এবং আমাদের মেধার চর্চা করতে হবে। তাহলেই আমরা সাফল্য আর্জন করতে পারবো। বাংলাদেশের আগামীর জয় দেখতে পাবো।’

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here