কালকিনিতে ১০ দিন ধরে একটি পরিবার একঘরে

0
80

রিপোর্টার:- আবির হাসান পারভেজঃ
জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে মাদারীপুরের কালকিনিতে প্রায় ১০ দিনে ধরে একটি অসহায় পরিবারকে একঘর করে রেখেছে প্রতিপক্ষ। এতে করে ওই ভুক্তভোগী পরিবার ঘর থেকে বের হতে না পেরে মানবেতর জীবনযাপন করছেন বলে অভিযোগে জানাগেছে। তবে এ বিষয়টি নিয়ে ওই এলাকায় সমালোচনার ঝড় সৃষ্টি হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিন সুত্রে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।
ভুক্তভোগী পরিবার ও এলাকা সুত্রে জানাগেছে, পৌর এলাকার পাঙ্গাশিয়া গ্রামের মোঃ মনির সরদারের ৭৯নং পাঙ্গাশিয়া মৌজার বিআরএস ১৩৭০ নং খতিয়ানের ৫ শতাংশ জমিসহ একটি পাকাবাড়ি ক্রয় করেন পশ্চিম শিকারমঙ্গল গ্রামের মাহাবুব সরদার। ওই পাকাবাড়িতে মাহাবুব সরদারের পরিবারের সদস্যরা বেশ কিছুদিন ধরে বসবাস করে আসছেন। কিন্ত জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ওই বাড়ির সকল যাতায়াতের পথ দেয়াল তৈরী করে বন্ধ করে দিয়েছেন জমি বিক্রেতা মনির সরদারের বড় ভাই বাদল সরদার ও ছোট ভাই লিটন সরদার। তারা এ বাড়ির সকল পথ বন্ধ করে দেয়ায় ঘর থেকে বের হতে পারছেন না মাহাবুব সরদারের মা, স্ত্রী ও দুই শিশু সন্তান। ওই দুই শিশুর মধ্যে জনি এবার ৭ম ও জেরিন প্রথম শ্রেনীর শিক্ষার্থী। ওই দুই শিক্ষার্থী ঘর হতে বেড় হতে না পেরে তাদের দুজনেরেই স্কুলে যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে বলে অভিযোগে জানাযায়। এ ঘটনায় মাহাবুব সরদারের স্ত্রী সালমা খানম নিরুপায় হয়ে কালকিনি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ভুক্তভোগী সালমা খানম বলেন, আমরা টাকা দিয়ে জমিসহ বাড়ি ক্রয় করেছি মনির সরদারের কাছ থেকে। কিন্তু বিনা কারনে আমাদের বাড়ির সকল পথ আটকে দিয়েছে মনির সরদারের ভাই বাদল সরদার। তাই আমরা ১০দিন ধরে ঘর থেকে বেড় হতে পারছিনা। আমি কোথাও গিয়ে কোন সঠিক বিচার পাচ্ছিনা।
অভিযুক্ত বাদল সরদার বলেন, আমার ভাইয়ের বিক্রিত জমির মধ্যে আমাদের জমি রয়েছে। তাই আমি দেয়াল নির্মান করেছি। মনে হয় ওই জমি ভাগ-বল্টন না করা পর্যন্ত কোন সমাধান হবেনা।
কালকিনি থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ নাসিরউদ্দিন মৃধা বলেন, জমির বিষয় কোর্ট দেখবে। আমাদের কিছু করার নেই।
এ ব্যাপারে জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বদরুল আলম মোল্লা বলেন, এ বিষয়টি থানা পুলিশ দেখবে

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে