নারীর পাশে আমরা অর্থাৎ পুলিশ আছি: এআইজি সহেলী

0
3

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

বাংলাদেশ পুলিশের দেশব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে বরিশাল রেঞ্জাধীন ৬ জেলায় ৪৭২ টি বিটে একযোগে ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন বিরোধী সমাবেশ করেছে পুলিশ। এসময় স্ব-স্ব বিটের ফেসবুক পেইজে সমাবেশ সারাসরি সম্প্রচার করা হয়।

তারই অংশ হিসেবে বরিশালে শনিবার (১৭ অক্টোবর) বেলা ১১ টায় নগরের অশ্বিনী কুমার হলে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশে অতিথি কমিউনিটি ও বিট পুলিশিং শাখার এআইজি সহেলী ফেরদৌস বক্তব্যে বলেন, সারা বাংলাদেশে বিট পুলিশিং এর আওতায় ৬৯১২ টি বিট রয়েছে।

আজ আমরা একসাথে, একই দিনে, একইসময় সারা দেশে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশ করছি, কারণ বাংলাদেশ পুলিশ আপনার সাথে আছে এই মেসেজটি দেয়া।

যে কোনো জায়গায়, যে কোনো ঘটনা আপনারা শুনতে পান, দেখতে পান অথবা জানতে পারেন তাহলে সাথে সাথে আমাদের জানাবেন। যদি থানা পর্যন্ত যেতে না চান বা যেতে না পারেন তাহলে আপনার বিট অফিসারকে মোবাইলে ফোন দিয়ে জানান আপনার সমস্যার কথা। বাংলাদেশ পুলিশ আপনার সাথে থাকবে। বিটের মাধ্যমে এলাকাগুলোকে ছোট ছোট ভাগ করার কারণ যাতে আমাদের অফিসার আপনাদের কাছে যেতে পারে। আর বিট অফিসারের নাম্বারও আপনারা রাখবেন।

এসময় এআইজি আরো বলেন, নারীর পাশে আমরা অর্থাৎ পুলিশ আছি। নিজেকে কখনো মনে মনে দুর্বল ভাববেন না। সবাই মিলে সোচ্চার হোন।  সবাই মিলে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনের প্রতিকার, প্রতিরোধ গড়ে তুলবো।

পুরুষ অভিভাবকদের উদ্দেশ্যে তিনি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, পুরুষ ভাইয়েরা যারা আছেন, এই নারীদের রক্ষক হিসেবে কিংবা পালনকর্তা-গৃহকর্তার দায়িত্বে। তাদের অনেক বড় দায়িত্ব রয়েছে। আপনাদের কাছে সমাজের একটা ডিমান্ড রয়েছে। আপনার ঘরের শিশু কন্যাটি যেন নিরাপদে বেড়ে ওঠে, সে যেন অন্যের ছায়ায় না থাকে, সে যেন নিশ্চিন্তে তার কাজ শেষ করে ঘরে ফিরে আসতে পারে এই নিশ্চিয়তা সবাইকে মিলে দিতে হবে।

তিনি বলেন, আপনারা আছেন আমাদের জন্য, আপনারা আছেন নারীদের জন্য। আপনারা আছেন নারীর সুরক্ষার জন্য। আপনার ঘরের কণ্যা শিশুটিকে যেভাবে দেখাভাল করবেন, সেই ভাবে প্রতিবেশীর শিশু ও নারীর জন্য সুরক্ষা বজায় রাখবেন। একজন নারী হিসেবে আমার অধিকার আছে নিশ্চিন্তে বাড়ির বাইরে যাবার, আবার আমার কাজ শেষ করে নিরাপদে বাড়িতে ফেরার। এ অধিকার আমাকে রাষ্ট্র দিয়েছে, আমার ধর্ম দিয়েছে।

বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের অংশগ্রহণে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান।

এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পিপি অ্যাডভোকেট এ কে এম জাহাঙ্গীর, বিএম কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অধ্যাপক গোলাম কিবরিয়া, সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব অ্যাডভোকেট এস এম ইকবাল, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ক্যামেলিয়া খান প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে