প্রথমবারের মতো ঐতিহাসিক ৭ মার্চ পালন করেছে বিএনপি

0
3

প্রথমবারের মতো ঐতিহাসিক ৭ মার্চ উপলক্ষে দলীয় কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। আজ রবিবার (৭ মার্চ) বিকেলে দিবসটি উপলক্ষে আলোচনা সভার আয়োজন করেছে বিএনপি। অভ্যুত্থান-পাল্টা অভ্যুত্থান, বিশ্বাস-অবিশ্বাস, রক্তপাত আর উল্লাসের বিতর্কিত দিন, ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর ক্ষমতায় আসীন হওয়ার ৩ বছর পর ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর রাজনৈতিক দল-বিএনপি গঠন করেন জিয়াউর রহমান।

স্বাধীন বাংলাদেশে এই দল তিনবার রাষ্ট্রক্ষমতায় আসে। সেই সঙ্গে ক্ষমতার বাইরে থেকে বিরোধী দলের ভূমিকায়ও ছিল দলটির। রাজনৈতিক দল হিসেবে আত্মপ্রকাশের পর থেকে কোনো বছরই দলটি বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণের দিন ৭ মার্চ পালন করেনি। বরং শুরু থেকেই দেশের রাজনীতিতে স্বাধীনতাবিরোধীদের জায়গা করে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে দলটির বিরুদ্ধে। তবে এবারই প্রথম ৭ মার্চ পালন করছে দলটি। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণের দিন পালনের ঘোষণার পর থেকেই রাজনৈতিক অঙ্গনে প্রশ্ন ওঠে, তবে কি বিএনপি তার রাজনৈতিক অবস্থানে পরিবর্তন আনছে?

এ ব্যাপারে দলটির শীর্ষ নেতারা বলছেন, বঙ্গবন্ধু ও ৭ মার্চ অবশ্যই ইতিহাস। স্বাধীনতায় ভূমিকা রাখা সব জাতীয় নেতাকে প্রাপ্য সম্মান দিতে চায় বিএনপি। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ৭ মার্চের বঙ্গবন্ধুর ভাষণ অবশ্যই ইতিহাস। তার সম্মান, তার মর্যাদা তাকে দিতেই হবে। এত বছর পর ৭ মার্চ পালনের সিদ্ধান্তের বিষয়টি নিয়ে চলছে আলোচনা। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের অনেকেই বলছেন, দীর্ঘদিন পর হলেও শুভবুদ্ধির উদয় হয়েছে বিএনপির।

মির্জা ফখরুল আরো বলেন, রাজনীতিবিদদের কাজে লাগিয়ে ইতিহাস বিকৃত করে জিয়াউর রহমানের নাম মুছে ফেলার চেষ্টা হচ্ছে। এসময় সত্যের মধ্যদিয়ে প্রকৃত ইতিহাস প্রজন্মকে জানানোর আহ্বান জানান বিএনপি মহাসচিব।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর কর্মসূচির অংশ হিসেবে আয়োজিত এই আলোচনা সভায় অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও সেলিমা রহমান প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে