অ্যাস্ট্রাজেনেকার বিরল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রক্ত জমাট বাঁধা: ইএমএ

0
0

অ্যাস্ট্রাজেনেকার বিরল পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রক্ত জমাট বাঁধা: ইএমএ

ইউরোপীয় ইউনিয়নের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানিয়েছে, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনা ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার তালিকায় অস্বাভাবিক রক্তে জমাট বাঁধার ঘটনা অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। রক্তে জমাট বাঁধার কয়েকটি ঘটনা গবেষণার পর বুধবার ইউরোপীয় মেডিসিন্স এজেন্সি (ইএমএ) এই তথ্য তুলে ধরেছে। তবে আবারও সংস্থাটি বলেছে, ভ্যাকসিনটি প্রয়োগে ঝুঁকির চেয়ে উপকার বেশি।

2021-04-08

ইউরোপীয় ইউনিয়নের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানিয়েছে, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার করোনা ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার তালিকায় অস্বাভাবিক রক্তে জমাট বাঁধার ঘটনা অন্তর্ভুক্ত করা উচিত। রক্তে জমাট বাঁধার কয়েকটি ঘটনা গবেষণার পর বুধবার ইউরোপীয় মেডিসিন্স এজেন্সি (ইএমএ) এই তথ্য তুলে ধরেছে। তবে আবারও সংস্থাটি বলেছে, ভ্যাকসিনটি প্রয়োগে ঝুঁকির চেয়ে উপকার বেশি। বিবিসি। 

ইউরোপীয় ইউনিয়নে ২ কোটির বেশি ডোজ অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে। ইএমএ-এর পক্ষ থেকে রক্তে জমাট বাঁধার ৮৬টি ঘটনা পর্যালোচনা করা হয়েছে। বুধবারের পর্যালোচনায় তারা জানিয়েছে, এই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার সুনির্দিষ্ট কোনও যোগসূত্র পাওয়া যায়নি। আক্রান্তদের মধ্যে ৬০ বছরের কম বয়সী নারী রয়েছেন, আছেন পুরুষরাও।

এক সংবাদ সম্মেলনে ইএমএ-এর নির্বাহী পরিচালক এমার কুক জানান, রক্তে জমাট বাঁধা ও প্লাটিলেটের সংখ্যা কমে যাওয়া ছিল বিরল কিন্তু সব বয়সের নারী ও পুরুষের মধ্যে ঘটেছে। নির্দিষ্ট বয়স, লিঙ্গ বা অতীতের রক্তে জমাট বাঁধার মতো বিষয়ের সঙ্গে কোনও ঝুঁকিমূলক যোগসূত্র থাকার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এমার কুক বলেন, আমাদের নিরাপত্তা কমিটি নিশ্চিত করেছে করোনাভাইরাস ঠেকাতে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ঝুঁকির তুলনায় অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিনের উপকার বেশি।

তিনি আরও বলেন, এই ভ্যাকসিনটি উচ্চ মাত্রায় কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। এটি গুরুতর রোগ ও হাসপাতালে ভর্তি ঠেকায় এবং মানুষের জীবন রক্ষা করে। অ্যাস্ট্রাজেনেকার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, তাদের গবেষণায় রক্তে জমাট বাঁধার সঙ্গে ভ্যাকসিনের কোনও যোগসূত্র পাওয়া যায়নি।

বাংলাদেশ জার্নাল/নকি

© Bangladesh Journal

(function(i,s,o,g,r,a,m){i[‘GoogleAnalyticsObject’]=r;i[r]=i[r]||function(){
(i[r].q=i[r].q||[]).push(arguments)},i[r].l=1*new Date();a=s.createElement(o),
m=s.getElementsByTagName(o)[0];a.async=1;a.src=g;m.parentNode.insertBefore(a,m)
})(window,document,’script’,’https://www.google-analytics.com/analytics.js’,’ga’);
ga(‘create’, ‘UA-103843996-1’, ‘auto’);
ga(‘send’, ‘pageview’);

(function(i,s,o,g,r,a,m){i[‘GoogleAnalyticsObject’]=r;i[r]=i[r]||function(){
(i[r].q=i[r].q||[]).push(arguments)},i[r].l=1*new Date();a=s.createElement(o),
m=s.getElementsByTagName(o)[0];a.async=1;a.src=g;m.parentNode.insertBefore(a,m)
})(window,document,’script’,’https://www.google-analytics.com/analytics.js’,’ga’);
ga(‘create’, ‘UA-115090629-1’, ‘auto’);
ga(‘send’, ‘pageview’);

_atrk_opts = { atrk_acct:’lHnTq1NErb205V’, domain:’bd-journal.com’,dynamic: true};
(function() { var as = document.createElement(‘script’); as.type=”text/javascript”; as.async = true; as.src=”https://certify-js.alexametrics.com/atrk.js”; var s = document.getElementsByTagName(‘script’)[0];s.parentNode.insertBefore(as, s); })();

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে